রবিবার, ২২ মে ২০২২, ০৭:৩৭ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
দেশব্যাপি জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি আবশ্যক। নুন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচ এস সি/ সমমান পাস। যোগাযোগঃ 01715247336

কলাপাড়ায় রাতের আঁধারে রাস্তার গাছ কেটে নিয়েছে একটি প্রভাবশালী মহল

মো.ফরিদ উদ্দিন বিপু,কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি / ১০৫ বার দেখা হয়েছে
নিউজ আপঃ সোমবার, ১০ মে, ২০২১, ৫:১৩ অপরাহ্ন

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় রাতের আঁধারে রাস্তার পাশের গাছ কেটে নিয়েছে একটি প্রভাবশালী মহল। সোমবার ভোররাতে ধানখালী ইউনিয়নের লোন্দা গ্রামের রাস্তার পাশের এসব সরকারী গাছ কেটে নিলেও বন বিভাগ এনিয়ে কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার ধানখালী ইউনিয়নের লোন্দা খেয়াঘাট হতে কলেজ বাজার পর্যন্ত রাস্তার দু’পাশে বিভিন্ন প্রজাতির বড় বড় গাছ রয়েছে। গাছগুলো স্থানীয়রাই রক্ষণাবেক্ষণ করে আসছে।  সোমবার (১০ মে) ভোররাতে স্থানীয় হানিফ পঞ্চায়েত বাডি়র সামনের তিনটি বড় সাইজের মেহগনি গাছ স্থানীয় প্রভাবশালী তুহিন মৃধা তার লোকজন নিয়ে রাতের আধাঁরে কেটে নেয়। রাস্তার পাশের এ গাছ কাটা নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। হানিফ পঞ্চায়েত’র মা ষাটোর্ধ চান বরু বলেন, ‘আজ হতে ২০-২৫ বছর আগে এ গাছগুলো আমি নিজের হাতে লাগিয়েছি।  কিন্তু এগুলো এভাবে রাতের আধাঁরে কেটে নেয়ায় ভীষন কষ্ট পেয়েছি। এগুলোতে আমাদের হক রয়েছে। কিন্তু তুহিন মৃধা গায়ের জোরে সেগুলো কেটে নিয়েছে।’
এ বিষয়ে তুহিন মৃধার কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মসজিদের জন্য ইউপি চেয়ারম্যানের সম্মতিতে গাছগুলো কেটেছি।  এনিয়ে নিউজ না করার জন্য তিনি অনুরোধ করেন।’

ধানখালী ইউপি চেয়ারম্যান মো. রিয়াজ উদ্দিন তালুকদার বলেন, ‘তুহিন মৃধাকে আমি গাছ কাটতে বলিনি। তুহিন মৃধা গাছ কাটলে তার বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ নিতে অনুরোধ করেন তিনি ।’

বনবিভাগের কলাপাড়া রেঞ্জ কর্মকর্তা আ: সালাম তার ব্যবহৃত মুঠো ফোন বন্ধ করে রাখায় এ বিষয়ে তার কোন বক্তব্য জানা যায়নি।


এই বিভাগের আরও খবর....

Google Sponsored Ads

এক ক্লিকে বিভাগের খবর