রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৯:৫৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
বাঘায় ১২১ পিস ইয়াবাসহ একজন আটক রাজবাড়ীতে পৌরসভার কাউন্সিলর অস্ত্র ও গুলিসহ আটক বাংলাদেশ রেলওয়েতে অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশু স্টাফ নিয়োগ স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর গলাকেটে হত্যা: প্রাইভেট শিক্ষকের তিনদিনের রিমান্ড টঙ্গীতে মালবাহী ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত পাংশায় পুলিশের অভিযানে আগ্নেয়াস্ত্র সহ আটক ৪ যুবক রাজবাড়ী জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ, আ’লীগের প্রার্থী পেলেন তালগাছ সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ কর্তৃক অভিযান পরিচালনা করে ৯০ বোতল ফেন্সিডিল সহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে ৪টি দেশীয় তৈরী অস্ত্র সহ এক চিহ্নিত অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী গ্রেফতার নোয়াখালীর মাইজদীতে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যা
নোটিশঃ
দেশব্যাপি জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি আবশ্যক। নুন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচ এস সি/ সমমান পাস। যোগাযোগঃ 01715247336

জামাই-শ্বাশুড়ির রাজত্ব,মাদকের রাজ্যে

নিজস্ব প্রতিনিধি / ৫১২ বার দেখা হয়েছে
নিউজ আপঃ সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:২২ পূর্বাহ্ন

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মাদকের আখড়া হিসেবে খ্যাত সরিষায় অন্যান্য মাদক সম্রাটের মতই পাল্লা দিয়ে বহাল তবিয়তে মাদকের রাজত্ব চালিয়ে যাচ্ছে সরিষার খালপাড়া এলাকার মিনু শেখ (৫০) ও তার মেয়ে জামাই সরিষার বহলাডাঙ্গা গ্রামের ইয়াবা সম্রাট খ্যাত রাসেল।
নির্ভর যোগ্য সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার সরিষার প্রাণ কেন্দ্রে হাতে গোনা ২-৩ জন শীর্ষ মাদক সম্রাট রয়েছে। আর সকলেই একই সম্পর্কের সূত্রে গাঁথা। এরা একাধিক মাদক মামলার আসামীও। বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে জেলায় মাদক বিরোধী অভিযান চলাকালীন সময়েও বহাল তবিয়তে মাদকের রাজত্ব কায়েম করে চলেছে।
জানা গেছে প্রতিদিন গাজা, ইয়াবা সহ প্রায় লক্ষাধিক টাকার মাদক বানিজ্য চালাচ্ছে মিনু, তার স্বামী দিরাজ (হাত কাটা দিরাজ) ও তার মেয়ের জামাই রাসেল। আর এই মাদক ব্যবস্যা বাধাহীন ভাবে চালাতে রাসেলের স্ত্রী শারমিন দেখাচ্ছে রাস্তা।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাসেলের বাবা সরিষা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি প্রয়াত গোলাম মোর্তজা এবং রাসেলের শ্বাশুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা আসনের সাবেক সদস্য থাকা কালীন সময় থেকে রাসেল তার প্রভাব খাটিয়ে বাড়িতে নির্বিঘ্নে ও বহাল তবিয়তে মাদক খুচড়া ও পাইকারী বিক্রয় করে আসছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার অধিকাংশ ব্যক্তিরা জানান, রাসেল ও তার শ্বশুর বাড়ির লোকেদের মাদকের রাজত্বে অতিষ্ঠ ইউনিয়নের বসবাসকারী সাধারণ জনগণ। কিন্তু তার অস্ত্রের ভয়ে কেউ কিছু বলতে পারেনা।
এর আগে রাসেলের শ্যালক জীবন (২১) কে দুটি অস্ত্র সহ গ্রেফতার করেছিল খোকশা থানা পুলিশ। রাসেলের শ্বশুর দিরাজকে একাধিকবার মাদকের মামলায় গ্রেফতার করে পাংশা থানা পুলিশ। কিন্তু প্রতিবার জামিনে মুক্তি পেয়ে পুনরায় লিপ্ত হয় গাঁজা নামের এই মাদক দ্রব্যের ব্যবসায়। তবে রাসেল গাঁজা নয় সরিষা ইউনিয়নে প্রথম ইয়াবার ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত সে। এলাকার অনেকে তাকে ইয়াবা সম্রাট আখ্যা দিয়েও ডাকতো।
সরিষার মাদকের রাজ্যে শুধু এই জামাই শ্বাশুড়ি নয় শীর্ষ আরো কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী রয়েছে। তবে তারা সকলেই এই জামাই-শ্বাশুড়ি পরিবারের সদস।


এই বিভাগের আরও খবর....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর