সোমবার, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১১:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
রাজশাহীতে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা নেই পুজামন্ডপে – রিয়াজ শাহরিয়ার জয়পুরহাটের কালাইয়ে  টেকসইকরণের প্রকল্পে রাস্তার কাজ হচ্ছে নিম্নমানের ইট দিয়ে বাঘায় ১২১ পিস ইয়াবাসহ একজন আটক রাজবাড়ীতে পৌরসভার কাউন্সিলর অস্ত্র ও গুলিসহ আটক বাংলাদেশ রেলওয়েতে অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশু স্টাফ নিয়োগ স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর গলাকেটে হত্যা: প্রাইভেট শিক্ষকের তিনদিনের রিমান্ড টঙ্গীতে মালবাহী ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত পাংশায় পুলিশের অভিযানে আগ্নেয়াস্ত্র সহ আটক ৪ যুবক রাজবাড়ী জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ, আ’লীগের প্রার্থী পেলেন তালগাছ সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ কর্তৃক অভিযান পরিচালনা করে ৯০ বোতল ফেন্সিডিল সহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক
নোটিশঃ
দেশব্যাপি জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি আবশ্যক। নুন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচ এস সি/ সমমান পাস। যোগাযোগঃ 01715247336

নির্যাতনের কথা জেনেও জবানবন্দি : ম্যাজিস্ট্রেটকে শো’কজ

ডেস্ক রিপোর্ট / ২৯৮ বার দেখা হয়েছে
নিউজ আপঃ রবিবার, ১৪ মার্চ, ২০২১, ১:৫৬ অপরাহ্ন

চাঁদপুরের সোহেল রানা হত্যা মামলায় ১৬ বছর বয়সী আসামির ওপর পুলিশি নির্যাতনের কথা জেনেও পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো ওই আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করায় চাঁদপুর আদালতের এক ম্যাজিস্ট্রেটকে শো’কজ করেছেন হাইকোর্ট। সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেটকে চার সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে মামলার ওই আসামিকে জামিন দিয়েছেন আদালত।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ রবিবার এ আদেশ দেন। আদালতে আসামির পক্ষে আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার রিমি নাহরিন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন বাপ্পী।

মামলার বিবরণে জানা যায়, একটি মোবাইল ফোনকে কেন্দ্র করে চাঁদপুরের শিক্ষার্থী সোহেল রানা ২০১৯ সালের ১৯ আগস্ট খুন হয়। এ ঘটনায় নিহতের ভাই বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এ হত্যার ঘটনায় ফরহাদ, মেহেদী ও রুবেলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এদের প্রত্যেকেই হত্যার কথা স্বীকার করেছে।

এদের মধ্যে আসামি ফরহাদ হাইকোর্টে জামিন আবেদন করে। তার জামিন আবেদনের ওপর শুনানিকালে আইনজীবী দাবি করেন, ফরহাদ যে স্বীকারেক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে তাতে ম্যাজিস্ট্রেট তার বয়স ১৬ বছর উল্লেখ করেছেন। অথচ পুলিশ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ১৯ বছর। আইনজীবী বলেন, স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতেই ম্যাজিস্ট্রেট বলছেন যে আসামিকে রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে বলে প্রতীয়মান হয়। আসামির ওপর নির্যাতন করা হয়েছে, এটা জানার পরও ম্যাজিস্ট্রেট সংশ্লিস্ট পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে জবানবন্দী রেকর্ড করেছে।

আইনজীবী আরো বলেন, আসামির বয়স যদি ১৬ বছর হয় তবে তো তার বিচার হবার কথা শিশু আদালতে। ওই জবানবন্দীর কপি দেখে হাইকোর্ট ক্ষোভ প্রকাশ করেন। আদালত বলেন, বিচারকের সামনে হাজির করা আসামির ওপর নির্যাতন করা হয়েছে কীনা তা দেখার দায়িত্ব তার। আসামির শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন থাকলে সে অনুযায়ী তার ব্যবস্থা নেওয়ার কথা। পুলিশ নির্যাতন করলে পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা। এর পরও আসামির জবানবন্দী গ্রহণ করায় হাইকোর্ট সংশ্লিস্ট ম্যাজিস্ট্রেটকে শোকজ করে আদেশ দেন। পাশাপাশি আসামির বয়স নির্ধারণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দেন।


এই বিভাগের আরও খবর....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর