বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০২:২৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
সরেরহাট কল্যানী শিশু সদনে অনিয়ম দূর্নীতির তথ্য প্রকাশ করায় দৈনিক ‘নাগরিক ভাবনা’র বিরুদ্ধে অভিযোগ পাংশায় বাস-ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ট্রাক চালক নিহত বৃদ্ধা মহিলার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নোটিশ জারি আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় ঝগড়া থামাতে গিয়ে স্ব-পরিবারে হামলার শিকার পাংশায় গুরুত্বপূর্ণ সড়কে শিক্ষার্থী ও পথচারীদের দুর্ভোগ ইউএনও আম্বিয়া সুলতানা অসহায় বৃদ্ধাকে বুকে জড়িয়ে ধরলেন, রাসিকের ১৩, ১৪ ও ১৯ নং ওয়ার্ড তারুণ্যের ছোঁয়ায় উজ্জীবিত এস এল এ মানবাধিকার সংস্থার ঈদ পুনর্মিলনী ২০২২ বাড়িয়াকান্দির বহরপুরে আগুনে পুড়ে কোটি টাকার সম্পদ ধ্বংস। সরাসরি ভোটে কাদিরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন
নোটিশঃ
দেশব্যাপি জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি আবশ্যক। নুন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচ এস সি/ সমমান পাস। যোগাযোগঃ 01715247336

জামালপুরে যমুনার বামতীর সংরক্ষণ বাঁধে ধ্বস

জামালপুর প্রতিনিধি / ২৪ বার দেখা হয়েছে
নিউজ আপঃ বৃহস্পতিবার, ১৯ মে, ২০২২, ১:৫৯ অপরাহ্ন

জামালপুর জেলার ইসলামপুরে যমুনার পানি বৃদ্ধির সাথে বাম তীর সংরক্ষণ বাঁধে ব্যাপক ধ্বস দেখা দিয়েছে। জানাযায়, বুধবার (১৮ মে) বিকালে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে জেলার ইসলামপুর উপজেলার কুলকান্দি পূর্বপাশে অন্তত ২০ মিটার অংশে বাঁধ ধ্বসেগেছে।

ফলে হুমকীর মুখে পড়েছে কুলকান্দি শামছুন্নাহার উচ্চ বিদ্যালয়, ঐতিহ্যবাহী মিয়া বাড়ী মসজিদ, মাদরাসা, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কুলকান্দি মাগুন মিয়ার বাজার, অসংখ্য বসতবাড়ী ও ফসলি জমি।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সুত্রে জানাযায়,গত ২০১০ সালে প্রমত্তা যমুনার ভাঙ্গন প্রতিরোধে জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ফুটানী বাজার থেকে শুরু করে ইসলামপুর উপজেলার উলিয়াবাজার পর্যন্ত এবং সরিষাবাড়ি উপজেলার পিংনা পর্যন্ত মোট ১৬ দশমিক ৫৫ কিলোমিটার যমুনার বাম তীর সংরক্ষণ বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেয় সরকার।

প্রকল্পটি জামালপুরের পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) এর অধিনে মোট ৪৫৫ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি ২০১০ সাল থেকে শুরু হয়ে ২০১৭ সাল নাগাত শেষ করা হয়। এই বাঁধ নির্মাণের ফলে ইসলামপুর উপজেলার পার্থশী, কুলকান্দি,বেলগাছা ও চিনাডুলি ইউনিয়নের বিশাল এলাকা নদী ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা পায়। কিন্তু প্রতিবৎসর বিভিন্ন স্থানে হঠাৎ করে বাঁধ ধ্বসে নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যায়। ফলে আবারও আতংঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়ে ভাঙ্গন কবলিত এলাকার মানুষ।

এ বিষয়ে স্থানীয়রা জানান, বাঁধের ধস প্রতিরোধে দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে আবারও অসংখ্য বসতবাড়ী ও ফসলী জমি নদী গর্ভে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এ ব্যাপারে জামালপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আবু সাঈদ জানান, যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় কুলকান্দি হার্ডপয়েন্টের পূর্বপাশে বাঁধ ধ্বসে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিষয়টি আমরা উর্ধ্বতন কর্তৃংপক্ষকে জানিয়েছি। হয়তো খুব দ্রুত সময়ের মাঝে ক্ষতিগ্রস্থ অংশে মেরামতের ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।


এই বিভাগের আরও খবর....

Google Sponsored Ads

এক ক্লিকে বিভাগের খবর