শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ০৭:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
আটঘরিয়ায় শেখ হাসিনারকে নিয়ে কটুক্তি করায় ছাত্রলীগের বিক্ষোভ নীলফামারী সদর উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের কমিটি গঠন কুড়িগ্রামে কোভিড-১৯ প্রতিরোধ প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা গোদাগাড়ীতে স্থানীয়দের সাথে প্রকল্প সমাপনী সেমিনার সভা গোদাগাড়ীতে প্রযুক্তির মাধ্যমে ফসল উৎপাদন বাজারজাতকরণে কৃষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা সরাইলে অরুয়াইল বাজারের রাস্তার মাঝখানে বিদ্যুতের খুঁটি সাঁথিয়ায় ব্যানার নেওয়ার বিষয়ে ইউএনও’র সংবাদ সম্মেলন শ্রীমঙ্গলে অতিরিক্ত দামে আটা,ময়দা ও তেল বিক্রি, ৫ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা শিবগঞ্জে নিসচার সচেতনতামূলক আলোচনা সভা ও পুরস্বার বিতরণ সাঁথিয়ায় ট্রাক চাপায় যুবক নিহত
নোটিশঃ
দেশব্যাপি জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি আবশ্যক। নুন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচ এস সি/ সমমান পাস। যোগাযোগঃ 01715247336

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ভবনে শনিবার রাতে যা ঘটেছে

ডেস্ক রিপোর্ট / ৬২ বার দেখা হয়েছে
নিউজ আপঃ রবিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২২, ৩:২০ অপরাহ্ন

পাকিস্তানের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোনো প্রধানমন্ত্রী অনাস্থা ভোটে হেরে ক্ষমতা থেকে বিদায় নিলেন। ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে যখন পাকিস্তানের পার্লামেন্টে নানা ঘটনা ঘটছিল, তখন প্রধানমন্ত্রী ভবনেও চলেছে নাটকীয়তা।

সবার নজর পার্লামেন্টের দিকে থাকলেও প্রধানমন্ত্রী ভবনে তখন অনেকগুলো ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, একের পর এক ঘটনা ঘটেছে। তার কিছু ক্যামেরার সামনে ঘটেছে, কিছু ঘটেছে রুদ্ধদ্বার কক্ষে। যখন ইফতারের কারণে পাকিস্তানের পার্লামেন্টের অধিবেশন মুলতুবি করা হয়, তখন হঠাৎ করে প্রধানমন্ত্রী ভবন সরগরম হয়ে ওঠে। খবর বিবিসির।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার সদস্যদের নিয়ে জরুরি বৈঠক আহ্বান করেন ইমরান খান। সেখানে তার আইন এবং রাজনৈতিক উপদেষ্টাও অংশ নেন। সেই সঙ্গে পার্লামেন্টের স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার এবং কয়েকজন আমলাকেও ডেকে পাঠানো হয়। মন্ত্রিসভার ওই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে, ইমরান খানের অভিযোগ অনুযায়ী, পাকিস্তান সরকারকে উৎখাত করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সরকারের যড়যন্ত্রের বিষয়টি কর্মকর্তাদের কাছে প্রকাশ করা হবে।

মন্ত্রিসভার বৈঠকের সময় হেলিকপ্টার যোগে প্রধামন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে আসেন দুজন অতিথি। ভবন ঘিরে অস্বাভাবিক নিরাপত্তা প্রস্তুতির মধ্যে ওই ব্যক্তি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে ৪৫ মিনিট ধরে বৈঠক করেন। এই দুজন অতিথির উপস্থিতি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের জন্য অনাকাঙ্ক্ষিত ছিল। তিনি অবশ্য হেলিকপ্টারের জন্য অপেক্ষা করছিলেন, কিন্তু যারা আসবেন বলে তিনি প্রত্যাশা করেছিলেন, হয়েছে তার উল্টোটা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ইমরান খান আশা করছিলেন, সেনাবাহিনীতে সদ্য যেসব রদবদল করেছেন, সেই সামরিক কর্মকর্তারা তার সঙ্গে দেখা করতে আসবেন। সেটা হয়তো হতো, কিন্তু সমস্যা হলো, সেনাবাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ে যে বৈপ্লবিক রদবদল তিনি করতে চেয়েছিলেন, সেটা কার্যকর করতে হলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তি জারি করতে হয়। কর্মকর্তাদের বরখাস্ত বা নতুন কর্মকর্তা নিয়োগের সেই আইনি বিজ্ঞপ্তি জারি হয়নি। ফলে ইমরান খানের বরখাস্ত আদেশ বা নতুন নিয়োগের আদেশ কার্যকরও হয়নি।

রোববার সকালে যদিও সামরিক মুখপাত্র দাবি করেছেন যে, এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। আইএসপিআর একটি বিবৃতিতে তিনি বলেন, পাকিস্তানের সামরিক বিষয় নিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিক সব তথ্য মিথ্যা-বানোয়াট।

তবে সরকারের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বিবিসিকে জানিয়েছেন, সদ্য পদ হারানো প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান শনিবার রাতে যাতে এমন কোনো রদবদল করতে না পারেন, সেজন্য রাতেই আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল। যদি ইমরান খানের রদবদলের আদেশের প্রক্রিয়া সম্পন্নও করা হতো, তারপরও সেটা যাতে বাতিল হয়ে যায়, সেই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছিল।

শনিবার মধ্যরাতে ইসলামাবাদ হাইকোর্ট খোলা হয় এবং সেখানকার প্রধান বিচারপতি আতহার মিনাল্লাহর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ডেকে পাঠানো হয়। তখন জানানো হয়েছিল, হাইকোর্ট একটি জরুরি পিটিশনের শুনানি করবে, যেখানে অভিযোগ করা হয়েছে, ইমরান খান রাজনৈতিক এবং ব্যক্তিগত উদ্দেশ্যে ক্ষমতার অপব্যবহার করছেন এবং সেনাপ্রধানকে পদচ্যুত করার সুপারিশ করেছেন।

ফলে জনস্বার্থে আদালতের ওই আদেশ বাতিল করে দেওয়া উচিত। তবে শেষপর্যন্ত যেহেতু ইমরান খানের ওই আদেশ কার্যকর হয়নি, তাই ওই পিটিশনেরও আর শুনানি হয়নি।


এই বিভাগের আরও খবর....

Google Sponsored Ads

এক ক্লিকে বিভাগের খবর