বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:১৪ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শিরোনামঃ
কলাপাড়ায় ক্ষতিগ্রস্থ সেই কৃষকের তরমুজ ক্ষেত পরিদর্শন করলেন ইউএনও পাংশায় স্ত্রীর গলা কেটে হত্যা করলেন স্বামী  পাল্টে যাচ্ছে পদ্মা চরের অর্থনীতি কবিতার নামঃ প্রভাত ফেরীর গান, লেখকঃমোস্তাফিজুর রহমান মানবাধিকার সংস্থার , সিনিয়র সহ-সভাপতির পিতা আলহাজ্ব দলিল উদ্দিন বিশ্বাস(৯০) আর নেই বসুন্দিয়ায় রেল প্রজেক্টের চুরির মালামাল উদ্ধার ৪ শ্রমিকসহ ৫জন আটক করেছে পুলিশ রাজবাড়ী জেলা বার এসোসিয়েশনের কার্য নির্বাহী পরিষদের নির্বাচন উৎসব মূখর পরিবেশে ৩টি প্যানেলের মনোনয়নপত্র দাখিল বাঘায় বিএনপির ত্রি-বার্ষীক ইউনিয়ন  কাউন্সিল অনুষ্ঠিত  রাজবাড়ীতে বাবার বিরুদ্ধে মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ  কলাপাড়ায় বিএনপির কর্মী সভা অনুষ্ঠিত
নোটিশঃ
চট্টগ্রাম বিভাগে বিভিন্ন জেলায় প্রতিনিধি আবশ্যক। যারা ইচ্ছুক, তারা আমাদের নিউজ পোর্টালে যোগাযোগ করবেন। যোগাযোগ 01715247336.

কলাপাড়ায় দুটি গরু বাজারে ইজারা না থাকলেও চলছে লাখ লাখ টাকার চাঁদাবাজী, ক্রেতারা জিম্মি।।

প্রতিবেদকের নাম / ১০৫ শেয়ার হয়েছে
নিউজ আপঃ মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০, ৫:০৮ অপরাহ্ন

মো.ফরিদ উদ্দিন বিপু,কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,১১আগস্ট।
cow bazar crime footage
কলাপাড়ায় দুইটি পশু বিক্রির হাটে ইজারা না থাকলেও প্রকাশ্য দিবালকে চলছে লাখ লাখ টাকার চাঁদাবাজী। এসব হাটে চাঁদা আদায়ের বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করলে’ই তাকে করা হয় লাঞ্চিত। কোন ধরনের নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে সড়কের মাঝখানে প্রতি সপ্তাহে বসানো এক দিনের হাট থেকে পুলিশ ও নামধারী সাংবাদিকদের ধার্যকৃত টাকা দেয়া হয় বলেও রয়েছে এমন এন্তার অভিযোগ। এমনকি অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের তথ্য সংগ্রহ কালে প্রকৃত সংবাদকর্মীদেরও চাদাবাজদের মাধ্যমে হতে হয় লাঞ্চনার শিকার।
উপজেলার বালীয়াতলী ইউপির কোম্পানী পাড়ায় দীর্ঘদিন ধরে পাতানো গরু ছাগলের হাট বসিয়ে আদায় করা হচ্ছে লাখ লাখ টাকা। বালীয়াতলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হুমায়ূন কবির’র ছোট ভাই হীরা হাওলাদার’র নেতৃত্বে দীর্ঘদিন ধরে চলছে এমন রমরমা চাদা আদায়ের মহা উৎসব। প্রতি শনিবার ওই হাটে প্রতিটি গরু ক্রয় এবং বিক্রয়দাতার কাছ থেকে আদায় করা হচ্ছে ২’শ থেকে ৩’শ টাকা। আর পশু বিক্রির যে রশিদ দেখানো হচ্ছে তাতে পক্ষিয়াপাড়া ইজারাদার হিসেবে নাম লেখা রয়েছে শাহারিয়ার সবুজের।
এছাড়া প্রতিটি রশিদে ৩ আগষ্ট তারিখ উল্লেখ করে হীরা হাওলাদারের সই থাকলেও প্রকৃত পক্ষে ক্রেতাদের দেয়া হয়েছে ৮ আগষ্ট রোজ শনিবার’র রশিদ। যার সত্যতা ধরাপরে এ প্রতিবেদকের ক্যামেরায়। শুধু তাই নয়, সাতদিন আগে সই স্বাক্ষরিত রশিদ দিয়ে জনপ্রতি পশু ক্রেতাদের সাথেও করা হচ্ছে প্রতারণা । শনিবার বিকালে কোম্পানিপাড়ার ওই পশু হাটে সরেজেমিনে দেখা যায় হীরা হাওলাদার চেয়ার টেবিলে বসেই চাঁদা আদায় করছেন হাসি মুখে। তবে সংবাদকর্মীদের ক্যামেরা দেখে নরেচরে বসেন তিনি ও তার সহযোগীরা।
এসময় এ প্রতিবেদককে অনেক সময়ধরে ম্যানেজের চেষ্টা করেন তিনি। অপরদিকে লালুয়া ইউপির মুক্তিযোদ্ধা বাজারে পাতানো গরু হাটের চাঁদাবাজীর চিত্র আরো ভয়াবহ। ক্যামেরা দেখেই চেয়ার টেবিল রেখে সটকে পরেন চাঁদা আদায়কারী চক্রের সদস্যরা। তবে ক্যামেরার সামনে মুখ খোলেন প্রতিবাদী বেশ কয়েক জন। তাদের অভিযোগ ইজারা না থাকা সত্যেও অবৈধভাবে বসানো গরু হাট থেকে আদায় করা হচ্ছে মোটা অংকের টাকা।
এমনকি পুলিশ ও অসাধু সাংবাদিকদের সপ্তাহপ্রতি টাকা দিয়ে প্রকাশ্যে চলছে চাঁদাবাজী। অভিযোগের ভিত্তিতে ইউনিয়ন আওয়ামীলী’র সদস্য জাকির পহলান’র কাছে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিদের ওপর চড়াও হন। একপর্যায়ে নিজেকে সংবাদকর্মী হিসেবে দাবী করেন। এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত একব্যক্তি জাকির পাহলানকে চাঁদা আদায়ের কথা মুখামুখি বললে তাকে লাঞ্চিত করেন । নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক স্থানীয় একাধিক ব্যক্তিরা জানান, জাকির পাহলান, ফরিদ বিশ্বাস, হোসেন খা (আমীর হোসেন), মুকুল মিয়া ওই হাটে চাঁদা আদায় করে থাকেন। ক্রেতাদের রশির দেখে জানা যায় লালুয়া বানাতী বাজার গরু হাটের ইজারাদার ইউনিয়ন আওয়ামীলী’র সভাপতি তারিক খানের নাম লেখা  রশিদ দিয়েই আদায় করা হচ্ছে অবৈধ গরু হাটের চাঁদা। তবে তিনি চাঁদা আদায়ের বিষয়টি জানেন না বলে সংবাদ কর্মীদের অবহিত করেন।
এদিকে কোম্পানিপাড়া বাজারের অবৈধ গুরু হাটে শাহরিয়ার সবুজের নাম ব্যবহার করে চাদা আদায় করা হচ্ছে তা জানতে চাইলে তিনি জানান, পক্ষিয়াপাড়া গরুহাটের ইজারা আমার নামে রয়েছে। তবে অবৈধ পশু বাজারের কথা তিনি জানেন না বলে উল্লেখ করেন। বালীয়তলী ইউপি চেয়ারম্যান হমায়ূন কবিরের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, ওই বাজার থেকে মসজিদের নামে সামান্য চাদা আদায় করা হয় আমি এটুকুই জানি। উপজেলা আওয়ামী লীগ’র সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেব তালুদার জানান, অন্যায় ভাবে দলীয় পরিচয় দিয়ে কেউযদি চাদা তোলে সে বিষয়ে দল তার সমর্থন করবে না। এব্যাপারে সিনিয়র নেতৃবৃন্দের সাথে অবশ্যই কথা বলবো, যেন আইনি পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়। যদি কেউ অপরাধি হয়।
কলাপাড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আহম্মদ আলী জানান, এধরনের অনিয়ম এবং চাদাবাজীর ব্যপারে জেলা পুলিশ জিরো টলারেন্স ঘোষনা করেছে। ছাড় দেয়ার কোন সুযোগ নেই। পুলিশ সপ্তাহিক টাকা নিচ্ছে এমন অভিযোগ রয়েছে বলে জানতে চাইলে তিনি জানান, কোন পুলিশ সদস্য যদি জরিত থাকে এবং অভিযোগ প্রমানিত হয়। সে দায়ভার তার একার বহন করতে হবে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুহাসনাত শহীদুল হক জানান, ইজারা না থাকলে অবৈধ হাট পাতানোর সুযোগ নেই। সত্যতা যাছাই করে তা বন্ধ করে দেয়া হবে।


এই বিভাগের আরও খবর....

Address

87 Middle Rajashon, Savar,Dhaka-1340

+8802-7746644, +8801774945450

EMAIL newsalltime27@gmail.com

এক ক্লিকে বিভাগের খবর